শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাস,মুশফিকের ‘নাগিন’ নাচ

শ্রীলংকার দেওয়া ২১৫ রানের পাহাড় সম রান টপকিয়ে এই ইতিহাস গড়ে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ এর আগে এতরান তাড়া করে কখনও জেতেনি। আজকের ম্যাচে শ্রীলংকাকে ৫ উইকেটে হারিয়ে ইতিহাস গড়েছে বাংলাদেশ।

ওপেনিংয়ে ঝড় তুলে সুরটা বেধে দিয়েছিলেন তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। মিডল অর্ডারে তাণ্ডব চালিয়েছেন মুশফিকুর রহিম। খেলেছেন ক্যারিয়ারের সেরা ইনিংস। শেষ দিকে অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ কাছ থেকে এসেছেও যোগ্য সঙ্গত। শ্রীলঙ্কার দেওয়া প্রায় অবিশ্বাস্য এক লক্ষ্য তাড়া করে ৫ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ।

অসাধারণ জয়ে তৈরি হলো দুর্দান্ত ইতিহাস এবং যে ইতিহাসের নায়কের নাম অবশ্যই মুশফিকুর রহিম!

পাকিস্তানকে ২০৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয়ে ফাইনালে ভারত।

অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারত।
পাকিস্তানকে ২০৩ রানের বিশাল ব্যবধানে হারিয় ফাইনালে ওঠেছে ভারত। ফলে এই আসরের ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিপক্ষ হিসেবে মাঠে নামবে ভারতীয়রা। ভারত এ নিয়ে ৬ষ্ঠবারের মতো ফাইনালে ওঠল।

সেমিতে ভারতকে পেয়ে জ্বলে উঠতে পারলো না পাকিস্তান। উল্টো মাত্র ৬৯ রানে অলআউট হয়ে ২০৩ রানের বিশাল পরাজয় বরণ করে নিয়েছে। আর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারতের যুবারা।

সনুমান গিলের সেঞ্চুরির সুবাদে ভারত বিশাল স্কোর গড়েছিল। গিল ৯৪ বলে ১০২ রান করে অপরাজিত থাকেন। এ ছাড়া মনজোট কারলা ৪৭, শ ৪১ ও অভিষেক শর্মা ৩৩ রান করেন। পাকিস্তানের পক্ষে মোহাম্মদ মুসা ৪টি, আরশাদ ইকবাল ৩টি উইকেট নেন।

জবাবে ভারতীয় বোলাদের সামনে অসহায় হয়ে পড়ে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যানেরা। তাদের কেউই টিকতে পারেনি। পাকিস্তানের মাত্র দুই ব্যাটসম্যান দুই অঙ্কের রান করতে সক্ষম হন। রোহাইল নাজির করেন সর্বোচ্চ ১৮ রান।ভারতের ঈশান পেয়েছেন চার উইকেট। (৬-১৭-৪), স্পিনার সিভা সিং ও রিয়ান প্রয়াগ দুটি করে উইকেট নেন। একটি করে উইকেট অনুকূল ও অভিষেকের। এই ম্যাচ সেরা হয়েছেন শুভমন। ৯৪ বলে সাতটি বাউন্ডারির সাহায্যে ইনিংস সাজান শুভমন।