অপহরণ হল মেয়ে বাবার সামনে থেকেই !! (ভিডিও)

সম্প্রতি ভারতের মুম্বাইতে এমন ঘটনা ঘটেছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম মিরর মঙ্গলবার এক প্রতিবেদনে জানায়, ভিডিও ফুটেজে শিরিন ফাতেমা নামের ওই শিশুকে স্পষ্টই চুরি যেতে দেখা যায়।

ফাতেমা খেলার ফাঁকে দোকানের বাইরে আসতেই পথচারি এক যুবক তাকে কোলে করে নিয়ে যায়। পুলিশ অবশ্য অভিযোগ পাওয়ার ৬ ঘণ্টার মধ্যেই ফাতেমাকে উদ্ধার করে। শিশুটিকে চুরি করার অভিযোগে সন্দীপ পারব নামের ওই যুবককেও আটক করা হয়েছে।

অবশ্য ওই যুবক কেন ফাতেমাকে নিয়ে গিয়েছিল তা পরিষ্কার নয়। সন্দীপের বিরুদ্ধে কি ধরনের অভিযোগ তোলা হবে সে সম্পর্কেও কিছু জানা যায়নি।

ভিডিওটি দেখুন…

আজ থেকে শুরু হল এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা।

এবারের এসএসসিতে ২০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছে। প্রায় সাড়ে তিন হাজার কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

প্রশ্ন ফাঁস হওয়া আটকাতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী পরীক্ষার্থীদের সাড়ে ৯টার মধ্যে কেন্দ্রে হাজির হয়ে যার যার আসনে বসতে হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় প্রথম দিনের পরীক্ষা শুরু হয়।

প্রথম দিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথমপত্র, সহজ বাংলা প্রথমপত্র এবং বাংলা ভাষা ও বাংলাদেশের সংষ্কৃতি বিষয়ের পরীক্ষা চলছে।

এছাড়া মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে কুরআন মাজিদ ও তাজবিদ এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে এসএসসি ভোকেশনালে বাংলা-২ (১৯২১) বিষয়ের পরীক্ষা দিচ্ছে শিক্ষার্থীরা।

এসএসসি ও সমামানের পরীক্ষায় গতবছর পরীক্ষার্থী ছিল ১৭ লাখ ৮৬ হাজার ৬১৩ জন। আর এবার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৮৯ জন শিক্ষার্থী। সেই হিসেবে এবার পরীক্ষার্থী বেড়েছে দুই লাখ ৪৫ হাজার ২৮৬ জন।

শিরোপা জয় হল নাহ টাইগারদের…।

এবারো ফাইনালে পারলো না বাংলাদেশ। কোনো টুর্নামেন্টের শিরোপার স্বপ্ন অধরাই রয়ে গেল। যেন আবারো ফিরে এলো ২০০৯’র ত্রিদেশীয় সিরিজ । বাংলাদেশকে উড়িয়ে চ্যাম্পিয়ন হলো কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের শ্রীলঙ্কা। এটি ২০১২’র এশিয়া কাপে ২ রানে টাইগারদের আফসোসের হার নয়। এ হার ৭৯ রানের চরম লজ্জার।

গতকাল ফাইনালে ২২২ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৪১ রানে গুটিয়ে যায় টাইগাররা। তার উপর যোগ হয় লঙ্কান ২২ বছর বয়সী পেসার শেহান মাদুশাঙ্কার হ্যাটট্রিক। ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে চতুর্থ বোলার হিসেবে এ কীর্তি গড়েন তিনি। অভিষেকেই প্রথম হ্যাটট্রিকের বিরল রেকর্ডের শুরু করেছিলেন বাংলাদেশের স্পিনার তাইজুল ইসলাম ২০১৪ সালে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। এরপর এ তালিকাতে যুক্ত হয়েছে কাগিসো রাবাদা ও হাসারাঙ্গার নাম।

চ্যাম্পিয়ন হওয়ার লক্ষ্যে ২২২ রান খুব বড় নয়। কিন্তু সাকিব আল হাসান ইনজুরি নিয়ে মাঠ থেকে ছিটকে পড়ায় সেই লক্ষ্যে পাড়ি জমাতে হাতে ছিল ৯ উইকেট। টানা তিন ম্যাচে ফিফটি হাঁকানো ওপেনার তামিম ইকবাল থাকাতে সাকিবের অভাব দলকে ভোগাবে না এমনটি আশা ছিল ভক্ত-সমর্থকদের। কিন্তু বিধিবাম! তামিম যে পারলেন না! নতুন সঙ্গী মোহাম্মদ মিঠুনকে একা ফেলে বাজে শটে আউট হন তিনি। যদিও আগের বলেই জীবন পেয়েছিলেন তামিম। দারুণ চেষ্টার পরও ফিরতি ক্যাচ নিতে পারেননি দুশমন্তা চামিরা।

তবে উইকেটের জন্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি লঙ্কান পেসারকে। পরের বলেই ক্যাচ দিয়ে দলকে বড় বিপদে ফেলেন তামিম। সাকিবের অনুপস্থিতিতে তিনে পাঠানো হয়েছিল সাব্বির রহমানকে। সাড়ে তিনবছর পর ওয়ানডেতে ফেরা মোহাম্মদ মিঠুন সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি। সাজঘরে ফেরেন ঝুঁকিপূর্ণ রান নিতে গিয়ে রান আউট হয়ে। সুরঙ্গা লাকমলের বল মিড অফে খেলেই রানের জন্য দৌড়ান মিঠুন। রান সেখানে ছিল না। থিসারা পেরেরার সরাসরি থ্রোতে বেল পড়ার সময় অনেক দূরে ছিলেন মিঠুন। ২৭ বলে একটি ছক্কায় ১০ রান করেন তিনি।

মিডল অর্ডারে টানা চার ম্যাচে ব্যর্থ সাব্বির রহমান ভুল থেকে শিক্ষা নেননি। গত তিন নম্বরে সুযোগ নিয়ে বাজে শটে ক্যাচ দেন সাব্বির জায়াগায় দাঁড়িয়ে দুশমন্তা চামিরাকে পুল করতে গিয়ে মিড উইকেটে ক্যাচ দেন সাব্বির। ১০ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৩ উইকেট হারিয়ে ২৬ রান। লজ্জা থেকে বাঁচাতে আসেন দলের অভিজ্ঞ দুই ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহীম ও মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। চতুর্থ উইকেটে দুই জনে গড়েন ৫৮ রানের জুটিও। দুইজনের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে ১৫তম ওভারে ৫০ কোটা পার করে দল।

তবে বাংলাদেশের প্রতিরোধ ভাঙেন আকিলা ধনঞ্জয়া। সাজঘরে ফেরান মুশফিকুর রহীমকে। আগের ওভারেই সুইপ খেলতে গিয়ে রিভিউ শেষে এলবিডব্লিউ থেকে বেঁচে যান মুশফিক। তবে তিনি উইকেট খোয়ান ওই সুইপ খেলতে গিয়েই। ধনাঞ্জয়াকে সুইপ করে শর্ট ফাইন লেগে ক্যাচ দেন মুশফিক। ৪০ বলে ২২ রান করেন তিনি। ২৩ ওভার শেষে বাংলাদেশের স্কোর ৮১ রানে ৪ উইকেট। মাহমুদুল্লাহর সঙ্গে ক্রিজে যোগ দেন সিরিজে প্রথমবারের মতো একাদশে সুযোগ পাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজ। তখন জয়ের জন্য ২৭ ওভারে ১৪২ রান প্রয়োজন। দলের বিপদে ব্যাট হাতে অবদান রাখতে পারলেন না মেহেদী হাসান মিরাজ। ফিরে যান ৫ রান করে। বোলার ধনঞ্জয়ার মাথার ওপর দিয়ে বল পাঠাতে গিয়ে ফিরতি ক্যাচ দেন মিরাজ।

একের পর এক আত্মাহুতির পর বুক চিতিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। ব্যাটসম্যানদের আসা-যাওয়ার মিছিলে ফিফটি তুলে নেন এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান। দলকে নিয়ে যান একশ রানে। ৫০ ছুঁতে মাহমুদুল্লাহর লেগেছে ৭০ বল। এই সময়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৫টি চার ও একটি ছক্কা। ৩২তম ওভারে তিন অঙ্কে পৌঁছে বাংলাদেশের সংগ্রহ। তাকে সঙ্গ দিতে এসেছিলেন সাইফুদ্দিন কিন্তু মাত্র ৮ রানেই বাজে এক রান আউটের শিকার হন। অধিনায়ক মাশরাফিও এসেছিলেন কিন্তু বাড়িয়েছেন শুধু হতাশাই। দ্রুত ফিরে গেলেন তিনিও।

ফুলটস বলে মিডউইকেটে ক্যাচ দেন অধিনায়ক। তাকে বিদায় করে প্রথম আন্তর্জাতিক উইকেট নেন শেহান মাদুশঙ্কা। ১২ বলে ৫ রান করে ফিরেন মাশরাফি। পরের বলেই রুবেল হোসেনকে আউট করেন মাদুশাঙ্কা । ফাইনালে বাংলাদেশের ব্যাট হাতে একাই লড়াই করে যাওয়া মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে পরের ওভারের প্রথম বলে আউট করে পূর্ণ করেন হ্যাটট্রিক। তার ৭৬ রানের ইনিংস থামলে দলও থামে ৪১.১ ওভারে ১৪১ রানে।