নেইমার রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি জমাতে যাচ্ছেন ..!! ৪১০০ কোটি টাকায় ছাড়বে পিএসজি

রিয়ালের হারের পর নেইমারকে হারানোর ভয় আবার জাগ্রত পিএসজি শিবিরে। ফরাসি ক্লাবটির ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মারকুইনহোস নিজেই ইঙ্গিত দিয়েছেন, নেইমারকে ধরে রাখার বিষয়ে এখন শঙ্কিত পিএসজি। নেইমার রিয়াল মাদ্রিদে পাড়ি জমাতে পারেন, এই বিশ্বাসই নাকি এখন ঘুরে ফিরছে পিএসজির অন্দরমহলে। মারুকইনহোসের সেই ইঙ্গিতের ধারাবাহিকতায় মানু সেইঞ্জ দিলেন আরও গরম খবর।

স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক এএস-এর এই ফুটবল লেখকের দাবি, নেইমারের সঙ্গে সম্ভাব্য চুক্তির বিষয়ে অনেক দূর এগিয়ে গেছে রিয়াল। গত মঙ্গলবার দুই দলের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ দ্বৈরথকে সামনে রেখে রিয়াল মাদ্রিদের অধিকাংশ কর্তাই নাকি উড়ে গিয়েছিলেন প্যারিসে।

পিএসজি কর্তারা নাকি এটাও বুঝে গেছে, তাদের ‘সোনার ডিম পাড়া হাস’ নেইমারকে নিয়েই ছাড়বে রিয়াল। রিয়ালের আগ্রহের মাত্রা বুঝে পিএসজি কর্তারাও তাই হাঁকিয়ে বসেছে নেইমারের চড়া দাম। মানু সেইঞ্জ তার কলামে পিএসজির প্রত্যাশিত অঙ্কটাও উল্লেখ করেছেন। পিএসজি নাকি নেইমারের উপর ঝুলিয়ে দিয়েছে ৪০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রাইস-ট্যাগ!

না, নেইমারের উপর নতুন করে রিলিজ ক্লজ ঝুলিয়ে দেয় পিএসজি। এর মাধ্যমে পিএসজি রিয়ালকে বুঝিয়ে দিয়েছে, নেইমারকে নিতে হলে অন্তত ৪০০ মিলিয়ন ইউরো ( বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪১০০ কোটি টাকা) লাগবে!

নেইমারবিহিন পিএসজিকে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালে রিয়াল…।।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো ও কাসেমিরোর গোলে পিএসজিকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে পা রেখেছে জিনেদিন জিদানের দলই।

নেইমারবিহীন পিএসজিকে বিদায় করে টানা অষ্টমবারের মতো কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

র্দান্ত জয় ছিনিয়ে নিলেও ম্যাচের প্রথমার্ধে অগোছালো ফুটবল খেলতে দেখা গেছে রিয়ালকে। অগোছালো হলেও গোলশূন্য ড্র নিয়ে বিরতিতে যায় দুদল। দ্বিতীয়ার্ধে গোল পেতে মরিয়া হয়ে ওঠে রিয়াল-পিএসজি। ৫১ মিনিটে ভাসকেজের ক্রসে হেডে বল ঠিকানায় পাঠান ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো।

পর্তুগিজ সুপারস্টারের এ গোলের সৌজন্যে শেষ আটে ওঠা অনেকটা নিশ্চিত হয় রিয়ালের।

সমতায় ফিরতে প্রাণপণ চেষ্টা চালায় পিএসজি। ৬৬ মিনিটে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন মার্কো ভেরাত্তি। ১০ জনের দলে পরিণত হলেও চেষ্টা থামেনি প্যারিসের দলটির। ফলে গোলের দেখাও পায় তারা। ৭১মিনিটে গোল করে দলকে সমতায় ফেরান এডিনসন কাভানি।

তবে এগিয়ে যেতে সময় লাগেনি রিয়ালের।

৮০ মিনিটে গোল করে সব শঙ্কার কালো মেঘ সরিয়ে দেন কাসেমিরো।

শেষ পর্যন্ত ২-১ গোলের জয়ে ক্লাবের জন্মবার্ষিকীতে সমর্থকদের উৎসব-আনন্দে ভাসান জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা।

নেইমারের পিএসজিকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।

ঘরের মাঠ সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে শেষ ষোলোর প্রথম লেগের লড়াইয়ে শক্তিশালী পিএসজির মুখোমুখি হয়েছিল গত দুইবারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল।

ম্যাচের প্রথম থেকেই পিএসজিকে চাপে রেখেছিল রিয়াল। তবে সফরকারীরাই দেখা পায় প্রথম গোলের। পিএসজির ফরাসি ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপে নেইমারের উদ্দেশ্যে ক্রস করেছিলেন। তবে রিয়ালের স্প্যানিশ ডিফেন্ডার নাচো হার্নান্দেজ আটকানোর চেষ্টা করলে বল চলে যায় দলটির ফরাসি মিডফিল্ডার আদ্রিওঁ রাবিওর কাছে। রিয়ালের গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের মাথার উপর দিয়ে বল জালে জড়াতে ভুল করেননি তিনি।

ম্যাচের ৪৫ মিনিটে পেনাল্টি পায় রিয়াল। পিএসজির গোলরক্ষক আলফঁসে আরিওলাকে পরাস্ত করে গোল করেন রোনালদো। দলকে সমতায় ফেরানো ছাড়াও এটি ছিল রিয়ালের হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তার শততম গোল।
প্রথমার্ধে বেশ কিছু ভাল সুযোগ পেয়েছিল দু’দলই। দ্বিতীয়ার্ধেও ঠিক তাই হয়েছিল। কিন্তু জালের দেখা পাচ্ছিল না কেউই। অবশেষে ম্যাচের ৮৩ মিনিটে আবার গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রোনালদো। স্প্যানিশ মিডফিল্ডার মার্কো অ্যাসেনসিওর একটি নিচু ক্রস ঠেকান আরিওলা। কিন্তু ছয় গজের বক্সের ভেতর থেকে বলে হাঁটু ঠেকিয়ে বুদ্ধিদীপ্ত গোলটি করেন রোনালদো।

রিয়ালের পরের গোলটিতেও ছিল অ্যাসেনসিওর ছোঁয়া। ডি-বক্সের বাইরে থেকে তার নিচু ক্রসে দারুণ শটে গোল করেন ব্রাজিলিয়ান ফুলব্যাক মার্সেলো।

ম্যাচের ৮৬ মিনিটের এই গোলে নিশ্চিত হয়ে যায় পিএসজির পরাজয়।
এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ৭ ম্যাচে ১১ গোল হল রোনালদোর। সব মিলিয়ে ১১৬ গোল। যেখানে এই প্রতিযোগিতায় ১০০ গোল নেই আর কারো।

রিয়ালের মাঠে হেরে বেশ বিপদেই পড়ে গেছেন উনাই এমেরির শিষ্যরা। মার্চের ৭ তারিখ দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে অন্তত ২-০ গোলে জিততে হবে। তাহলেই পূর্ণ হবে পিএসজির কোয়ার্টার ফাইনালের স্বপ্ন। আর ম্যাচটি জিতলে বা ড্র করলেও রিয়াল উঠে যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে।

৪২

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে আজ রাতে মাঠে নামবে রিয়াল মাদ্রিদ-পিএসজি…।

বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৪৫ মিনিটে শুরু হবে।

শক্তিমত্তার দিক থেকে কোনো দলই পিছিয়ে নেই। এক দল স্প্যানিশ লা-লিগায় মাঠ কাঁপাচ্ছে, আর অন্যদিকে ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে একের পর এক ম্যাচ জিতে যাচ্ছে নেইমারের পিএসজি। তবে পরিসংখ্যানে নেইমার-কাভানির দল পিএসজিই এগিয়ে রয়েছে।

এ পর্যন্ত মোট ৭টি ম্যাচে দুদলের দেখা হয়েছে। এর মধ্যে ৩টি ম্যাচে পিএসজি জিতেছে, আর ২টিতে রিয়াল মাদ্রিদ। বাকি ২টি ড্র হয়েছে।

আজ পিএসজির সঙ্গে হারলে টানা তৃতীয়বার শিরোপা জয়ের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হওয়ার শঙ্কায় পড়বে জিদানের শিষ্যরা। তবে ঘরের মাঠের খেলায় জেতার সম্ভাবনা বেশিই রয়েছে সাবেক চ্যাম্পিয়নদের। এদিকে দিনের অন্য ম্যাচে ঘরের মাটিতে লিভারপুলের মোকাবেলা করবে পোর্তো।