মাথাবিচ্ছিন্ন একটি মোরগ ৭ দিন ধরে বেঁচে আছে। (ভিডিও ভাইরাল)

থাইল্যান্ডের রচাবুরি প্রদেশের মিয়াউয়াং রাচাবুরি জেলার অদ্ভুত এ ঘটনাটি এখন সামাজিক মাধ্যমে তোলাপাড় তৈরি করেছে। সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর মতে, মাথাবিচ্ছিন্ন একটি মোরগ ৭ দিন ধরে বেঁচে আছে।

ওই এলাকার একটি বৌদ্ধ মন্দিরের ভিক্ষুরা মোরগটির দেখভাল করছেন- এমন ভিডিও ক্লিপ এখন ভাইরাল। ভিডিওতে দেখা যায়, মোরগটিকে সিরিঞ্জ দিয়ে খাবার দেওয়া হচ্ছে। লাখ পাঁচেকবার দেখা হয়ে গেছে এই ভিডিও এ পর্যন্ত।

থাই মিডিয়ার খবরে জানা গেছে, মোরগটিকে যেখানে পাওয়া যায়, পরে সেই স্থানের সবচেয়ে কাছের প্যাগোডার ভিক্ষুরা প্রাণীটিকে নিজেদের আশ্রয়ে নেন। এখন দেখভাল তারাই করছেন।

নোপ্পোঙ্গ থিট্টানো নামের এক ইউজার সামাজিক মাধ্যমে প্রথমে মোরগটির বিষয়ে খবর জানান। এরপর স্থানীয় পশুচিকিৎসক বোরাকরন শ্রীরোজ লোকজনের কাছ থেকে চাঁদা তুলে মোরগটির চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। সুপাকারি অরুণ থাংগ নামের অপর চিকিৎসক প্রথম মোরগটিকে খাবার খাওয়ান সিরিঞ্জ দিয়ে। তিনি একই কায়দায় অ্যান্টিবায়োটিকও দেন মোরগটিকে। মুণ্ডুহীন মোরগের সেবক এই নারী চিকিৎসক বলেন, এর আয়ু বাকি ছিল। সে বাঁচতে চেয়েছে আর আমরা তাকে খাওয়া-দাওয়া দিয়েছি আর দেখভাল করেছি।

তাদের মতে, এই মোরগটি হচ্ছে একজন সাচ্চা যোদ্ধা। প্রাণীটির অমন হাল কী করে হলো তা নিশ্চিত করা না গলেওে স্থানীয়রা মনে করছেন অন্য কোনো পাখি বা প্রাণীর প্রাণঘাতী হামলা থেকে কোনোমতে বেঁচে যায় সে। ভিডিওতে দেখা যায়, মোরগটির মাথার একটি অংশ ছিঁড়ে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। হতে পারে এর মাথা তথা মস্তিষ্কের একটি অংশ শরীরের সঙ্গে রয়ে গেছে অর্থাৎ গলার ওপরে থাকা অংশের সঙ্গে আছে।

ইউটিউব ভিডিও দেখুন

ঐ দিন কি হয়েছিল ? নবীজির নামাজ কেন কাজা হয়েছিল ? কি হলো তারপর…..

এক রাতে নবীজি (সা.) সাহাবিদের নিয়ে সফর করছিলেন। রাত শেষে বিশ্রামের বিরতি হয়। হজরত বেলাল (রা.) কে ফজরের নামাজের জন্য জাগিয়ে দেয়ার দায়িত্ব দিলেন। এরপর সবাই ঘুমিয়ে পড়লেন। এ দিকে হজরত বেলালও (রা.) ক্লান্ত। তিনিও ঘুমে আচ্ছন্ন। ফজরে কাউকে জাগাতে পারেননি। সবার ফজরের নামাজ কাজা হয়ে যায়।

নবীজি (সা.) ঘুম থেকে জেগে সূর্য ওঠার কিছুক্ষণ পর সবাইকে নিয়ে ফজরের নামাজ কাজা করলেন। বোখারি শরিফ : ৫৯৭ জুমা নামাজের কাজা নেই : জুমা নামাজের কাজা নেই। জুমা পড়তে না পারলে চার রাকাত জোহার কাজা পড়তে হবে। কাজা নামাজের সময় : কাজা নামাজ পড়ার কোন নির্দিষ্ট সময় নেই। যখনই স্মরণ হবে এবং সুযোগ হবে পড়ে নিতে হবে। তবে নিষিদ্ধ সময়গুলোতে মনে পড়লে অপেক্ষা করতে হবে।

দীর্ঘ কাজা হলে : কারো যদি কয়েক মাস এবং বছর নামাজ কাজা হয়ে যায়, তাহলে তার উচিত কাজা নামাজ একটা অনুমান করে নিয়ে কাজা পড়া শুরু করা। এ অবস্থায় কাজা নামাজ পড়ার নিয়ম এই যে, সে যে ওয়াক্তের কাজা পড়তে চাইবে সে ওয়াক্তের নাম নিয়ে বলবে যে, অমুক ওয়াক্তের সবচেয়ে প্রথম বা শেষ নামাজ পড়ছি। যেমন কাজা হওয়া নামাজের মধ্যে ফজরের নামাজের কাজা পড়তে চায়। তাহলে বলবে, ফজরের সবচেয়ে প্রথম অথবা শেষ নামাজ পড়ছি। এভাবে পড়তে থাকবে যাতে সকল কাজা নামাজ পুরা হয়ে যায়। ভ্রমণের সময়ের কাজা : সফরে যে নামাজ কাজা হবে তা মুকিম হয়ে পড়তে গেলে কসর পড়বে। কসর মানে চার রাকাত বিশিষ্ট নামাজ দুই রাকাত পড়বে। তেমনি মুকিম অবস্থায় কাজা হলে সফরে তা পুরা পড়তে হবে।

ফরজ বা ওয়াজিব নামাজ সময় মতো পড়তে না পারলে, সময় উত্তীর্ণ হওয়ার পর পড়া হলে তাকে কাজা নামাজ বলে। পাঁচ ওয়াক্তের ফরজ নামাজ ছুটে গেলে কাজা করা ফরজ। এশার নামাজের সময় বেতরসহ যে কোনো ওয়াজিব নামাজের কাজা করা ওয়াজিব। নফল নামাজ শুরু করার পর ওয়াজিব হয়ে যায়। কোন কারণে নফল নামাজ নষ্ট হলে অথবা শুরু করার পর কোন কারণে যদি ছেড়ে দিতে হয়, তাহলে তার কাজা করাও ওয়াজিব। সুন্নতে মুয়াক্কাদা এবং নফলের কাজা নেই। তবে ফজরের নামাজ সুন্নত-ফরজ উভয়টা পড়তে না পারলে সুন্নত-ফরজ এক সঙ্গে কাজা করা উত্তম। দুপুরের চার রাকাত সুন্নত পড়তে না পারলে ফরজের পরও পড়ে নেওয়া যায়। ফরজের পর যে দুই রাকাত সুন্নাত আছে তার আগেও পড়া যায় এবং পরেও পড়া যায়। তবে দুপুরের ওয়াক্ত চলে গেলে কাজা ওয়াজিব হবে না।

মাহিরা খানের নতুন ছবি ‘সাত দিন মোহাব্বাত ইন’ এর ফার্স্ট লুক প্রকাশ !!

নিজ দেশ পাকিস্তানে মুক্তি পেতে যাচ্ছে তাঁর অভিনীত রোমান্টিক কমেডি ড্রামা ‘সাত দিন মোহাব্বাত ইন’। ছবিতে তাঁর বিপরীতে আছেন শেহরিয়ার মুনাওয়ার।

মাহিরা যে চরিত্রে রূপ দান করবেন সেটির নাম ‘নীলি’। আর এই নীলি চরিত্রটি কেমন হবে তাঁরই একটি লুক সম্প্রতি নিজের ট্যুইটার হ্যান্ডেলে ভক্তদের জন্য শেয়ার করেছেন এই প্রতিভাবান পাকিস্তানি অভিনেত্রী।

ছবিতে টিপুর (শেহরিয়ার মুনাওয়ার) কাজিন এবং খুব ভালো বন্ধু নীলি। নীলি খুব আকর্ষণীয় এবং উদ্যমী এক তরুণী। যে তার স্বপ্নের রাজ্যে বসবাস করে। এটি একটি নির্ভেজাল রোমান্টিক কমেডি ছবি।

প্রতিভাবান পাকিস্তানি পরিচালক জুটি মেনু গৌর আর ফারজাদ নবী’র সাথে চিত্রনাট্যে আছেন ফাসিহ বারী খান। রানা কামরান এর সিনেমাটোগ্রাফিতে নির্মিত ছবিটি প্রডাকশনে আছে ডন ফিল্মস। ছবিটি ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বিশ্বব্যাপী মুক্তি পাবে।
সূত্র : ডিএনএ

মুকেশ আম্বানির অর্থে ভারত সরকার ২০ দিন চলবে…!!

প্রশ্ন যদি হয়, আপনার অর্থ দিয়ে নিজের দেশকে কতোদিন চালাতে পারবেন? উত্তর দিতে পারবেন কি? ভারতের শীর্ষস্থানীয় ধনী মুকেশ আম্বানির কাছে কিন্তু এই প্রশ্নের উত্তর আছে। তিনি নিজের যে অর্থ-সম্পত্তি রয়েছে, তা দিয়ে বিশ্বের দ্বিতীয় সর্ববৃহৎ জনগোষ্ঠীর দেশ ভারতের সরকারকে চালাতে পারবেন ২০ দিন।

সম্প্রতি বিশ্বের শীর্ষ ধনীদের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে ব্লুমবার্গ। তালিকায় শীর্ষ ধনীদের ব্যক্তিগত অর্থে কতোদিন তাদের স্বদেশের সরকারি ব্যয় চালানো যাবে, তা তুলে ধরা হয়।

সম্পত্তি বিবেচনায় এ তালিকায় স্থান পেয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৪৯ জন ধনকুবের। তালিকা প্রকাশের জন্য ২০১৭ সাল শেষে ধনী ব্যক্তিদের মোট সম্পত্তি হিসাব করা হয়। ভারতের শীর্ষ ধনী মুকেশ আম্বানির মোট সম্পত্তির পরিমাণ ৪০ দশমিক ৩ বিলিয়ন (৪ হাজার ৩০ কোটি) মার্কিন ডলার। এ অর্থ দিয়ে ভারত সরকারকে চালানো সম্ভব ২০ দিন পর্যন্ত।

ব্লুমবার্গের এ তালিকায় ধনীদের দেশ হিসেবে ভারতের অবস্থান চীন, নেদারল্যান্ডস, ফ্রান্স, রাশিয়া, ব্রাজিল, অস্ট্রেলিয়াসহ আরও অনেক দেশের চেয়ে উপরে।